নয়াদিল্লী, ২০ আগস্ট – প্রায় ৪০ লাখ শ্রমিককে বেকার ভাতা দিতে চলেছে ভারতীয় কেন্দ্রীয় সরকার। তাদের তিন মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ বেকার ভাতা হিসাবে দিতে নিয়ম শিথিল করা হয়েছে। করোনার প্রকোপ শুরু হবার পর ২৪ মার্চ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০২০-র মধ্যে চাকরি হারানো বা সম্ভাব্য চাকরি হারানোদের ক্ষেত্রে এই ভাতা দেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী সন্তোষ গাঙ্গওয়ারের পৌরহিত্যে ইএসআইসি বোর্ডের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে হিন্দুস্থান টাইমস জানিয়েছে। এতে মোট ৪১ লাখ শ্রমিক উপকৃত হবেন।

ইএসআইসি বোর্ড সদস্য অমরজিৎ কৌর বলেন, শেষ তিন মাসের গড় মাইনের ৫০ শতাংশ দেওয়া হবে। তবে কারা এই লাভ পাবেন, সেই মাপকাঠি আরেকটু শিথিল করলে প্রায় ৭৫ লাখ শ্রমিক উপকৃত হতে পারতেন।

আরও পড়ুন: ভারতে ২০ দিনেই ১২ লাখ করোনা শনাক্ত

যে সব শ্রমিকরা মাসে ২১ হাজার টাকার কম রোজগার করেন তারা ইএসআইসি স্কিমের অন্তর্ভুক্ত। প্রতি মাসে তাদের বেতনের একটি অংশ কেটে এই স্কিমে যুক্ত হয়, যেখানে থেকে অসুস্থ হলে স্বাস্থ্য সুবিধা মেলে। এই কর্মীদের আইপি বলা হয়। বর্তমানে আইপি-রা নিজেদের বেসিকের ০.৭৫ শতাংশ কাটান এই খাতে। যে সংস্থায় তারা কর্মরত, তারা দেয় ৩.২৫ শতাংশ।

এবার থেকে ঠিক হয়েছে, আইপিরা কোনও ক্লেম করলে সেটা তার চাকুরিদাতার থেকে আসার প্রয়োজন নেই। পরে শুধু ইএসআইসি ব্রাঞ্চ অফিসে ক্লেম ভেরিফাই করে নেওয়া যেতে পারে চাকুরিদাতার সঙ্গে যোগাযোগ করে।

কোনও শিল্পের সঙ্গে যুক্ত কর্মী যদি দুই বছর ইএসআই স্কিমের আওতায় থেকে থাকে ও চাকরি হারানোর আগে ছয় মাস এই তহবিলে টাকা জমা করে থাকে, ও অন্তত ছয় মাস টাকা জমা করে তার আগের দুই বছরে, তাহলে সে এই বেকারত্ব ভাতা পাবেন চাকরি হারানো শ্রমিকরা।

এই মুহূর্তে প্রায় ৮০ লাখ কর্মী ইএসআইসি স্কিমের সঙ্গে যুক্ত আছেন ও বর্তমানে চাকরি হারিয়েছেন। তাদের প্রায় ৫০ শতাংশ লাভবান হবেন ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তে।

সূত্র : চ্যালেন আই
এন এইচ, ২০ আগস্ট



#করনকল #বকর #শরমকদর #জনয #ভতর #বযবসথ #করছ #ভরত #সরকর

Was this helpful?

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে